ঢাকা রবিবার, নভেম্বর ১৭, ২০১৯

ড. কামাল কথা রাখলেন না


|| প্রকাশিত: 5:56 pm , November 15, 2018

পিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম: গণফোরাম নিজ প্রতীকে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে লড়বে বলে নির্বাচন কমিশনকে (ইসি) চিঠি দিয়েছিলেন দলটির প্রতিষ্ঠাতা ড. কামাল হোসেন। গত ১১ নভেম্বর ইসিতে দেওয়া চিঠিতে তিনি জানিয়েছিলেন, নিজ দলের প্রতীকেই (উদীয়মান সূর্য) আসন্ন নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করবে গণফোরাম । তবে আজ বৃহস্পতিবার নিজেদের সে অবস্থান থেকে সরে এসেছে দলটি। জানালো তারা লড়বেন বিএনপির ধানের শীষ প্রতীকে।

বৃস্পতিবার দুপুরে মতিঝিলে ড. কামাল হোসেনের চেম্বারে বৈঠক করে প্রতীক বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয় ঐক্যফ্রন্ট। বৈঠক শেষে জোটের শরিক দল নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না সাংবাদিকদের জানান, জোটের সব দলের প্রার্থীরা ধানের শীষ প্রতীকেই নির্বাচনে অংশ নেবেন। সাংবাদিকদের মান্না বলেন, ঐক্যফ্রন্ট জোটের নির্বাচনী প্রতীক ধানের শীষ। এই প্রতীকে আমরা নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

এ বিষয়ে ইসিকে চিঠিও দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার আগারগাঁও নির্বাচন কমিশনে ঐক্যফ্রন্টের কেন্দ্রীয় নেতা অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী চিঠিটি পৌঁছে দেন। সুব্রত চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট জোটগতভাবে ৩০০ আসনে ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করবে। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের দলগুলো হলো বিএনপি, গণফোরাম, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগ, জাসদ (জেএসডি) ও নাগরিক ঐক্য।

চিঠিতে বলা হয়, আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে গণফোরাম (নিবন্ধন নং: ০২৪) জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শরিক রাজনৈতিক দল হিসেবে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করবে। চিঠিতে সই করেন গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মোহসীন মন্টু।

চলতি বছরের ১১ নভেম্বর জাতীয় ঐক্যফন্ট জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নেওয়ার ঘোষণা দেন। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন আগামী ৩০শে ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচন পেছানোর কোনো সুযোগ নেই বলে এরইমধ্যে নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে। বুধবার নির্বাচন কমিশন সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ বলেন, ৩০ ডিসেম্বরের পর নির্বাচন পেছানোর আর কোনও সুযোগ নেই। নির্বাচন পেছালে সেটা আইনি জটিলতায় পড়বে।

এই বিভাগের আরও খবর
সর্বশেষ