ঢাকা শনিবার, সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৯

দেওয়ান লালনের গানে ‘১৫ আগস্টের কালো সেই দিন’


|| প্রকাশিত: 2:32 pm , August 14, 2019

কতটা নির্মমতা? ১৫ আগস্ট কী হারালো বাঙ্গালী? শোকাবহ সেই দিনের মর্মস্পর্শী বর্ণনা উঠে এসেছে গীতিকার দেওয়ান লালন আহমেদের ‘বঙ্গবন্ধু’ গানে। গানটিতে কণ্ঠ দিয়েছেন ফিডব্যাক ব্যান্ডের মূল ভোকালিস্ট শাহনূর রহমান লুমিন। সুর করেছেন সাজেদ ফাতেমী।

মেহেরপুর জেলার মুজিবনগর, যশোর এবং রাজধানী ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে অবস্থিত বঙ্গবন্ধু জাদুঘরে চিত্রায়িত হয়েছে গানটির মিউজিক ভিডিও। ‘বঙ্গবন্ধু’ শিরোনামের গানটি নির্মিত হয়েছে পার্পল ভিশনের ব্যানারে। প্রকাশিত হয়েছে জি সিরিজের ইউটিউব চ্যানেলে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের লড়াকু ও সংগ্রামী জীবন, নির্মম হত্যাকাণ্ড-প্রাধান্য পেয়েছে এই গানে। উঠে এসেছে বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেসা মুজিব, শিশু রাসেলকে হত্যার নির্মমতা।

এই গানের মিউজিক ভিডিও’র চিত্রায়নে, প্ল্যাকার্ডে নানা অঞ্চল ও শ্রেণী পেশার মানুষ ধারণ করেছেন জাতির পিতাকে। মেহেরপুরের মুজিবনগর স্মৃতিসৌধের মানচিত্রে একসঙ্গে হাজারো মানুষ সামিল হয়েছিলেন।

বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ করে জ্বালিয়েছেন মোমবাতি। এক সঙ্গে গেয়েছেন, ‘কাঁদো বাঙালি আজ কাঁদো সবাই/ কান্নাতে পাবে পৃথিবীর সব সুখ/ কোটি মানুষের প্রাণ–স্পন্দনে/ পিতা, তুমিই বাংলার মুখ’।

পেশায় পুলিশ কর্মকর্তা ও গীতিকার দেওয়ান লালন আহমেদ গানটি লেখা প্রসঙ্গে বলেন, মুজিব মানেই বাংলাদেশ। অথচ তাকেই হত্যা করেছে ঘাতকেরা। এই হত্যাকাণ্ড বাঙ্গালী জাতি ও বাংলাদেশকে পিছিয়ে দিয়েছে। নতুন প্রজন্মকে সেই অভিশপ্ত দিনটির কথা জানাতেই গানটি লিখেছি।

যার কণ্ঠে মর্মস্পর্শী সেই গানের কথা হৃদয় স্পর্শ করবে, সেই গায়ক লুমিন বলেন, আমরা দুর্ভাগা জাতি। বঙ্গবন্ধুকে এভাবে হারাতে পারি আমরা? গান গাইতে গিয়ে সেই কষ্ট বুকে বিঁধেছে।