ঢাকা রবিবার, এপ্রিল ৫, ২০২০

সিরিয়ায় তুরস্কের অভিযানে ২৭৭ কুর্দি ও এক তুর্কি সেনা নিহত


|| প্রকাশিত: 3:57 pm , October 11, 2019

পিনিউজ২৪ ডেস্ক: সিরিয়ায় তুরস্কের অভিযানে ২৭৭ জন কুর্দি যোদ্ধা নিহত হয়েছে। এতে একজন তুর্কি সেনা নিহত এবং তিন আহতের ঘটনাও ঘটেছে।

তুরস্কের সংবাদমাধ্যম আনাদলু জানায়, বৃহস্পতিবার রাতে অভিযানে ৪৯ জন কুর্দি যোদ্ধা নিহত হয়েছে।

নতুন করে অভিযান শুরুর পর এখন পর্যন্ত ২৭৭ জন কুর্দি যোদ্ধা নিহত হয়েছে বলে শুক্রবার এক টুইটারে জানিয়েছে তুরস্কের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়।

অভিযানে এক তুর্কি সেনা নিহত এবং আরও তিনজন আহত হয়েছে বলে মন্ত্রণালয় জানায়।

তুরস্ক বুধবার সীমান্ত সংলগ্ন উত্তর সিরিয়ার ইউফ্রেটিস নদীর পশ্চিম অববাহিকায় এই অভিযান চালায়। সিরীয় শরণার্থী প্রত্যাবাসন এবং তুরস্কের বিরুদ্ধে লড়াইরত কুর্দি যোদ্ধাদের হটাতে সীমান্তে ‘সেইফ জোন’ প্রতিষ্ঠা এই অভিযানের লক্ষ্য বলে জানায় আঙ্কারা।

এ দিকে সিরিয়ায় সামরিক অভিযান চালিয়ে প্রবল আন্তর্জাতিক বিরোধিতার মুখে পড়েছে তুরস্ক। ‘সীমা অতিক্রম করলে’ ফের তুরস্কের অর্থনীতি ধ্বংস করে দেওয়ার হুমকি দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। যদিও এর আগে তিনি ওই অঞ্চল থেকে সেনা প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছিলেন।

সিরিয়ায় ইসলামিক স্টেট-আইএস জঙ্গিদের পরাজিত করার ক্ষেত্রে যুক্তরাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ মিত্র ছিল কুর্দি যোদ্ধারা। এ জন্য ট্রাম্পের সেনা সরিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেন তার রিপাবলিকান মিত্ররাও। পরবর্তীতে তুরস্ককে ‘সীমা অতিক্রম’ না করার হুঁশিয়ারি দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

এদিকে দেশটির কড়া সমালোচনা করেছে তিক্ত সম্পর্ক থাকা সৌদি আরব ও মিসরও। সৌদি আরব এই অভিযানকে ‘ঐক্য এবং সিরীয় ভূখণ্ডের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের নির্লজ্জ আগ্রাসন’ বলে মন্তব্য করেছে।

এ ছাড়া সৌদি জোটের আরব মিত্র সংযুক্ত আরব আমিরাত, কুয়েত এবং বাহরাইনও সিরিয়ায় তুরস্কের এই সামরিক অভিযানের সমালোচনা করেছে।

কানাডা, ইতালি, নেদারল্যান্ডস ও ডেনমার্কও এই সামরিক অভিযানের সমালোচনা করেছে। এই ‘সেইফ জোন’ প্রতিষ্ঠায় ইউরোপীয় ইউনিয়ন কোনো আর্থিক সহযোগিতা দেবে না বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন জোটটির নির্বাহী প্রধান ক্লদ জাঙ্কার। তিনি এই অভিযান বন্ধের আহ্বান জানিয়েছেন।

এই বিভাগের আরও খবর
সর্বশেষ