ঢাকা বুধবার, আগস্ট ৫, ২০২০

এক মন্ত্রী ও দুই প্রতিমন্ত্রীর রদবদল


|| প্রকাশিত: 1:43 am , February 14, 2020

পিনিউজ২৪ ডেস্ক: সরকারের চলতি মেয়াদে তৃতীয়বারের মতো মন্ত্রিসভার তিন মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর দপ্তর বদল করা হয়েছে। এ দফায় গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিমের দপ্তর বদল করে মত্স্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ে প্রতিমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ। আর মত্স্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান খসরুকে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী করা হয়েছে। গতকাল এ-সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

মন্ত্রিসভার এ রদবদল হলো সরকারের বর্তমান মেয়াদের ১৩ মাসের মাথায়। মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এ-সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রুলস অব বিজনেস অনুযায়ী মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীদের এ দায়িত্ব পুনর্বণ্টন করেছেন।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর গত বছরের ৬ জানুয়ারি নতুন মন্ত্রিসভার নাম ঘোষণা করা হয়। পরদিন শপথ নেন ২৪ জন মন্ত্রী, ১৯ জন প্রতিমন্ত্রী ও তিনজন উপমন্ত্রী।

পাঁচ মাস পর গত বছরের ১৯ মে মন্ত্রিসভায় প্রথম রদবদল আনা হয়। এতে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় এবং ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ে দায়িত্বরত মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীদের দায়িত্ব ভাগ করে দেয়া হয়। স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসানকে তথ্য মন্ত্রণালয়ে বদলি করা হয়। আর ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের দায়িত্ব মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের কাছে রেখে এ মন্ত্রণালয়ের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের দায়িত্ব দেয়া হয় প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলককে। এছাড়া স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী তাজুল ইসলামকে স্থানীয় সরকার বিভাগের দায়িত্বে রেখে প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টচার্যকে পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের দায়িত্ব দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

গত বছরের জুলাইয়ে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমেদকে একই মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর দায়িত্ব দেয়া হয়। একই সঙ্গে সংসদ সদস্য ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরাকে মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দেন প্রধানমন্ত্রী।

বর্তমান মন্ত্রিসভায় ২৫ জন মন্ত্রী, ১৯ জন প্রতিমন্ত্রী ও তিনজন উপমন্ত্রী রয়েছেন। সরকারের বর্ষপূর্তির পরই মন্ত্রিসভায় রদবদলের কথা বলা হয়েছিল ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে। গত ২২ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগের পুনর্নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জানিয়েছিলেন, নতুন বছরের শুরুর দিকেই মন্ত্রিসভায় রদবদল আসতে পারে। তবে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের নির্বাচনের কারণে জানুয়ারিতে মন্ত্রিসভায় পরিবর্তনের ঘোষণা আসেনি। বড় ধরনের রদবদলের আলোচনা থাকলেও শেষ পর্যন্ত তিন মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর দপ্তর পরিবর্তন করা হয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর
সর্বশেষ