ঢাকা বৃহস্পতিবার, জুলাই ৯, ২০২০

বুড়িগঙ্গায় লঞ্চডুবি : মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩২


|| প্রকাশিত: 4:39 pm , June 29, 2020

পিনিউজ২৪ ডেস্ক: রাজধানীর ফরাশগঞ্জ-শ্যামবাজার এলাকা সংলগ্ন বুড়িগঙ্গা নদীতে একটি লঞ্চ ডুবে গেছে। সোমবার দুপুর সাড়ে ৩টা পর্যন্ত নারী, শিশুসহ ৩২টি মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। আজ সোমবার সকাল ১০টা দিকে মর্নিং বার্ড নামের নৌযানটি প্রায় ১০০ যাত্রী নিয়ে মাঝ বুড়িগঙ্গায় ডুবে যায়। নিখোঁজ হওয়াদের সন্ধানে উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছে ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট, কোস্টগার্ড, নৌবাহিনী।

ডুবুরিরা জানান, লঞ্চটি নদীর তলাদেশে উপুর হয়ে আছে। ভেতরে কত জনের লাশ আছে তা বোঝা যাচ্ছে না এখনও। শেষ ৭-৮টি মরদেহ ডুবে থাকা লঞ্চটির আশেপাশে ভাসমান অবস্থায় পেয়েছেন তারা।

ঢাকা-চাঁদপুর রুটের ময়ূর-২ নামের একটি লঞ্চের ধাক্কায় মর্নিং বার্ড ডুবে যায়। এ সময় বেশ কয়েকজন যাত্রী সাঁতার কেটে তীরে উঠে আসলেও নিখোঁজের সংখ্যা নিতান্তই কম নয়।

লঞ্চ দুর্ঘটনার সময় সদরঘাটের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ এবং প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে জানা গেছে, ঢাকা-চাঁদপুর রুটের ময়ূর-২ লঞ্চটি সদরঘাট থেকে চাঁদপুরের দিকে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিল। ঠিক একই সময়ে মুন্সিগঞ্জ থেকে আসা ছোট যাত্রীবাহী লঞ্চ মর্নিং বার্ড সদর ঘাটের জেটিতে থামতে এগিয়ে আসছিল। মর্নিং বার্ড লঞ্চটি যখন ময়ূর-২ লঞ্চকে অতিক্রম করছিল তখন সেটিতে ধাক্কা লাগে। এ সময় মর্নিং বার্ড লঞ্চটি প্রায় ১০০ শত যাত্রী নিয়ে ডুবে যায়।

ফায়ার সার্ভিসের ডিউটি অফিসার রোজিনা আক্তার জানান, মুন্সীগঞ্জের কাঠপট্টি থেকে যাত্রী নিয়ে মর্নিং বার্ড নামের একটি ছোট লঞ্চ ঢাকায় আসছিল। শ্যামবাজার এলাকায় চাঁদপুর থেকে আসা ময়ূর-২ লঞ্চের সঙ্গে এর সংঘর্ষ হয়। এ সময় মনিং বার্ড লঞ্চটি ডুবে যায়।

এখনও উদ্ধার তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে বলে জানান কোস্ট গার্ড সদর দফতরের মিডিয়া কর্মকর্তা লে. কমান্ডার হায়াৎ ইবনে সিদ্দিক। উদ্ধার কাজে অংশ নিতে নারায়ণগঞ্জ থেকে বাংলাদেশ আভ্যান্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ’র (বিআইডব্লিউটিএ) উদ্ধারকারী জাহাজ এসে উদ্ধার কাজে অংশ নিয়েছে বলে জানা যায়।

দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহ জামান বলেন, ‘ধারণা করা হচ্ছে প্রায় ১০০ জন যাত্রী ছিলেন ঐ লঞ্চে। এর মধ্যে নিখোঁজ হয়ে যান প্রায় ৭০ জন।’

বিআইড‌ব্লিউ‌টিএর যুগ্ম প‌রিচালক (বন্দর) একেএম আরিফ উদ্দিন ব‌লেন, ‘সকাল ৯টার দিকে মুন্সীগঞ্জ থেকে ছেড়ে আসা মর্নিং বার্ড লঞ্চটি সদরঘাটে বা‌র্দিং (জেটিতে থামার সময়) করার আগ মুহূর্তে চাঁদপুরগামী ময়ূর-২ লঞ্চটি ধাক্কা দেয়। এতে সঙ্গে সঙ্গে তুলনামূলক ছোট মর্নিং বার্ড লঞ্চটি ডুবে যায়।’

এই বিভাগের আরও খবর
সর্বশেষ