ঢাকা শনিবার, আগস্ট ৮, ২০২০

মহিপুরে চেয়ারম্যানের কর্মসূচীতে অংশগ্রহণকারীরা পেলেন সরকারি চাল!


|| প্রকাশিত: 9:19 pm , July 30, 2020

পিনিউজ২৪ ডেস্ক: স্ত্রীর করোনা রিপোর্ট পজেটিভ থাকলেও নিজের রিপোর্ট নেগেটিভ আসার দু’দিনের মাথায় করোনা ঝুঁকি মাথায় নিয়েই ইউপি চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে বিশাল মানববন্ধন করা হয়েছে। ওই ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে গত ২৫ ও ২৬ জুলাই বরিশালের কয়েকটি আঞ্চলিক দৈনিকে প্রকাশিত খবরকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টায় আলীপুর শেখ রাসেল সেতুর ওপর এই মানববন্ধন করা হয়।

এরপর মানববন্ধনে অংশগ্রহণকারীদের মাঝে ইউনিয়ন পরিষদে ঈদের বিশেষ ভিজিএফ এর চাল বিতরণ করা হয়েছে। গোলাপ প্রতিবন্ধী উন্নয়ন সংস্থা লতাচাপলী শাখার ব্যানারে ইউনিয়ন পরিষদের ত্রাণ ও ভিজিএফ এর সুবিধাপ্রাপ্ত প্রতিবন্ধী ও স্থানীয় বিভিন্ন মসজিদের ঈমাম মুয়াজ্জিনদের অনেকে হাতে বস্তা ও ব্যাগ নিয়ে এ মানববন্ধনে অংশ নিয়েছেন।

এছাড়া ইউনিয়নের বিভিন্ন আশ্রয়ণ প্রকল্পে বসবাসরত মহিলাদেরও ওই মানববন্ধনে অংশগ্রহণে বাধ্য করা হয় বলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অংশগ্রহণকারীদের কয়েকজন এ দাবি করেছেন। এরপর ইমাম মুয়াজ্জিনদের মাঝে ঈদের বিশেষ ভিজিএফ এর ৪৫ কেজি করে চাল বিতরণ করা হয়েছে। মানববন্ধনে ইউপি চেয়ারম্যান নিজে অংশগ্রহণের পাশাপাশি ইউপি সদস্যরাও ছিলেন। ইউপি চেয়ারম্যান আনছার উদ্দিন মোল্লা পরিষদের একটি কক্ষে আইসোলেশনে থাকার পর ২৭ জুলাই তার করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ আসে।

এরপর দিন ২৮ জুলাই থেকে পর্যায়ক্রমে ঈদের বিশেষ বরাদ্দ ১০ কেজি করে চাল ৭ হাজার ২০০ লোকের মাঝে বিতরণ করেন। এসময় পূর্বনির্ধারিত এই মানববন্ধনে অংশগ্রহণের বিষয়ে তাগিদ দিয়ে রাখেন। এর আগে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টায় কুয়াকাটা প্রেসক্লাবে লতাচাপলী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের আয়োজনে ইউনিয়ন সভাপতি ডা: সিদ্দিকুর রহমান সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলেন, মহিপুর থানার ওসি মনিরুজ্জামানের ইন্দনে কুয়াকাটা খানাবাদ কলেজের প্রতিষ্ঠাতা আলহাজ্ব জহিরুল ইসলাম খান সম্প্রতি প্রকাশিত খবরে চেয়ারম্যান আনছার উদ্দিন মোল্লার বিরুদ্ধে উদ্দেশ্যমূলক বানোয়াট বক্তব্য দিয়েছেন। ওই বক্তব্যে ওসির অপসারণও দাবি করা হয়েছে।

পরবর্তীতে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে জহিরুল ইসলাম খানের জবর দখলে থাকার কথা উল্লেখ করে একটি প্রতিবন্ধী পরিবারের জমি উদ্ধারের দাবি জানান লতাচাপলী ইউপি চেয়ারম্যান আনছার উদ্দিন মোল্লা।

এসময় একই দাবিতে গোলাপ প্রতিবন্ধী উন্নয়ন সংস্থা লতাচাপলী শাখার সভাপতি আ: রহিমও বক্তব্য রাখেন। এ প্রসঙ্গে আলহাজ্ব জহিরুল ইসলাম খান বলেন, কোন প্রতিবন্ধী পরিবারের জমি আমার দখলে নেই। যার জমি আমার দখলে রয়েছে বলা হচ্ছে প্রকৃতপক্ষে কলেজের ওই জমিতে সেই পরিবারটিই অবৈধভাবে দখলে আছে।

আমরা ব্যক্তিগতভাবে তাদের বিরুদ্ধে কোন কথা না বলে আদালতের শরানাপন্ন হয়েছি। ওসি মনিরুজ্জামান বলেন, একজন করোনা নেগেটিভ হওয়া ব্যক্তির ১৪ দিনের জন্য হোমকোয়ারেন্টাইনে থাকার বিধান রয়েছে। বিষয়টি দেখার দায়িত্ব আমাদের নয়, এটি উপজেলা প্রশাসনের দেখবার কথা।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবু হাসনাত মো: শহিদুল হক বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে যে কেউ শান্তিপূর্ণ কর্মসূচী পালন করতে পারে।

এই বিভাগের আরও খবর
সর্বশেষ