ঢাকা বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ২৯, ২০২০

বরিশালে ১৫ বছরের কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা


|| প্রকাশিত: 5:19 pm , October 14, 2020

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে মুঠোফোনে গাজীপুর থেকে বরিশালে এনে ১৫ বছরের কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

মামলায় কাউনিয়া ধানাধীন রামকাঠি এলাকার মো. মোতালেব খানের ছেলে ফয়সাল খানকে (২২) প্রধান করে নামধারী ৬ জনকে আসামী করা হয়েছে।

মামলার বাকি আসামীরা হলেন- কাউনিয়া থানাধীন আইচা এলাকার মো. সবুজ হাওলাদার (৪০), মিরাজ হাওলাদার (২২) ও তাদের সহযোগী সাইদুল (২৫), সোহেল (২২) ও আলম আমিন (২১)।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) বরিশালের মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ওই কিশোরীর ২২ ধারায় জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, মামলার প্রধান আসামী ফয়সাল খান ও সবুজ হাওলাদার মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ফুসলিয়ে ভিকটিমকে ঢাকা থেকে বরিশালে আনেন। ওইসময় ২ নম্বর আসামী ভিকটিমকে বিবাহ করার আশ্বাসও দেন।

পরে ১১ অক্টোবর ভিকটিম বরিশাল সদর উপজেলার শায়েস্তাবাদে এলে তাকে নিয়ে মামলার আসামীরা পরস্পর যোগসাজেশে বিভিন্ন স্থানে ঘোরাঘুরি করে। ওইদিন দুপুরে ভিকটিমকে নৌকা যোগে নদীতে ঘুরতে নেয় আসামীরা এবং চর হবিনগরের একটি জঙ্গলে নিয়ে মামলার প্রধান আসামী ফয়সাল ভিকটিমকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন।

পরে বরিশাল নগরের বিভিন্ন স্থানে ঘোরঘুরি করে এবং রাতে আসামীরা অসৎ উদ্দেশ্যে ভিকটিমকে নিয়ে কাউনিয়া থানাধীন পুষ্টি খাদ্য ইনিস্টিটিউটের নবনির্মিত ভবনের পেছন নিয়ে যায়। ওইসময় বিষয়টি স্থানীয়দের নজরে এলে তারা বিষয়টি পুলিশকে অবহিত করে।

এর আগে বিষয়টি মামলার আসামীরা টের পেয়ে পালিয়ে যায়। ওইসময় স্থানীয়রা ভিকটিমকে তাদের হেফাজতে নেয় এবং ফয়সালের মোটরসাইকেলটিকেও আটক করে। পরে পুলিশ এসে ভিকটিম ও মামলার প্রধান আসামীর মোটরসাইকেলটিকে তাদের হেফাজতে নেয়।

এ ঘটনা জানতে পেরে পরের দিন ১২ অক্টোবর ভিকটিমের মা গাজীপুরের জয়দেবপুর থেকে বরিশালে আসেন এবং একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন।

এই বিভাগের আরও খবর
সর্বশেষ