ঢাকা বুধবার, জানুয়ারী ২০, ২০২১

কঙ্গনার বিরুদ্ধে মানহানির মামলা


|| প্রকাশিত: 3:58 pm , January 10, 2021

পিনিউজ২৪ ডেস্ক: বলিউডের বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দু মানেই অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত। প্রথম থেকেই সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুরহস্য নিয়ে সরব তিনি। সুশান্তের মৃত্যুতে বলিউডের নেপোটিজম, ফেভারিটজম এবং নানা অন্ধকার দিক তুলে একের পর এক মন্তব্য করে খবরের শিরোনামে উঠে আসেন এই অভিনেত্রী। বিতর্কের সঙ্গে ওতপ্রোত ভাবে জড়িয়ে গিয়েছে তার নাম। কিন্তু এই বিতর্কে জড়াতে গিয়ে পড়লেন আইনি বিপাকেও। একের পর এক মামলা দায়ের করা হয় তার বিরুদ্ধে। প্রথমে কৃষি বিল সংক্রান্ত, এরপর সাম্প্রদায়িক উসকানির জন্য এবং পরবর্তীতে মানহানির মামলা দায়ের করেন বলিউডের নামী গীতিকার, চিত্রনাট্যকার জাভেদ আখতার। এবার তার বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করলেন পাঞ্জাবের মহিন্দর কৌর। এই মহিলাকেই কঙ্গনা ‘শাহিনবাগের দাদি’ বিলকিস বানো বলে ভুল করেছিলেন।

কিছুদিন আগে ভারতের কৃষক আন্দোলনে যোগ দেওয়া এক বৃদ্ধাকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কটুক্তি করেছিলেন বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত। কৃষক আন্দোলনে যোগ দেওয়া ওই বৃদ্ধাকে বিলকিস বানোর সঙ্গে গুলিয়ে ফেলে বিরূপ মন্তব্য করে টুইট করেছিলেন তিনি। লিখেছিলেন, ‘হা! হা! ইনি তো সেই দাদি, যাকে টাইমস ম্যাগাজিনের প্রভাবশালী ব্যক্তিত্বদের তালিকায় রাখা হয়েছিল। একে তো ১০০ টাকার বিনিময়েই পাওয়া যায়।’ এই মহিলাকেই কঙ্গনা ‘শাহিনবাগের দাদি’ বিলকিস বানো বলে ভুল করেছিলেন।

এই পোস্টটির পরপরই শুরু হয় প্রবল বিতর্ক। বেগতিক দেখে কঙ্গনা পোস্টটি মুছেও দেন। কিন্তু ততক্ষণে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে গিয়েছে সেটির স্ক্রিনশট। মিকা সিং, দিলজিৎ দোসাঞ্জের মতো বলি তারকা ও বক্সার বিজান্দার সিংয়ের মতো তারকারা কড়া সমালোচনা করেন ‘কন্ট্রোভার্সি ক্যুইন’ কঙ্গনার।

সেই সময় ওই পোস্ট নিয়ে প্রবল বিতর্কের পর সেটি মুছেও দিলেও সেই পোস্টকে কেন্দ্র করেই এবার পাঞ্জাবের এক আদালতের দ্বারস্থ বর্ষীয়ান মহিন্দর কৌর। কঙ্গনার বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ৪৯৯ ও ৫০০ ধারায় সম্মানহানির মামলা দায়ের করেছেন তিনি। আগামী ১১ জানুয়ারি আদালতে শুনানির দিন।

ভারতীয় গণমাধ্যম সুত্রে জানা গেছে, আদালতে ৭৩ বছরের মহিন্দর কৌর জানিয়েছেন, কঙ্গনার ওই টুইটের কারণে তাকে প্রবল মানসিক হেনস্তা ও অবমাননার মধ্যে পড়তে হয়েছে। তার মানসিক শান্তি বিঘ্নিত হয়েছে। পাড়া-প্রতিবেশী, আত্মীয়স্বজন এবং আমজনতার কাছে তার ভাবমূর্তি নষ্ট হয়েছে। তার আরও অভিযোগ, এমন বিশ্রী ভুল করার পর ক্ষমাও চাননি কঙ্গনা। এর আগে ওই বিতর্কের শুরুতেও কঙ্গনাকে কটাক্ষ করেছিলেন মহিন্দর।

মহিন্দর কৌর আরও জানিয়েছেন, এই বয়সেও তিনি যথেষ্ট পরিশ্রম করেন। কাস্তে দিয়ে ফসল কাটেন এবং ফসলের যত্ন নেন নিয়মিত। ক্ষোভের সঙ্গে বলেন, ‘আমি কী করব একশো টাকা দিয়ে? আমার তিন মেয়েরই বিয়ে হয়ে গিয়েছে। ছেলে তার স্ত্রী ও সন্তানদের নিয়ে আমার সঙ্গে থাকে।’

এদিকে, সোশ্যাল মিডিয়ায় হিংসা ছড়ানোর অভিযোগে বান্দ্রা মেট্রোপলিটন কোর্টের নির্দেশ মেনে শুক্রবার (৮ জানুয়ারি) মুম্বাই থানায় গিয়ে স্টেটমেন্ট রেকর্ড করিয়েছেন অভিনেত্রী। সঙ্গে ছিলেন তার দিদি রঙ্গোলি।

এই বিভাগের আরও খবর
সর্বশেষ